মতেন্দ্র মানখিন

স্বাধীনতার মাস এলেই গুচ্ছ গুচ্ছ রক্তকরবী

শিমুল পলাশ অজস্র ফুল ফুটে আমাদের

মনে-বনে-কোণে।  ফুলে ফুলে ভরে যায় চারপাশ

ছন্দে-আনন্দে বড় ব্যকুল হয়ে ওঠে আমাদের মন।

 

হে দেশ, হে জননী তোমার স্বাধীনতার জন্মদিনে

তোমাকে আরও বেশী মনে পড়ে, আরও বেশী

ভালবাসতে ইচ্ছে হয় খুব। সমস্ত বিষণ্ন গোধুলি

দূর করে আশা ও ভালবাসার অকুল বিথার ঢেউয়ের

পর ঢেউ ছুটে আসে পদ্মা-মেঘনা-যমুনার কলগীতে।

 

স্বাধীনতার এত আনন্দ উৎসবের মাঝেও

কখনও কখনও জেগে ওঠে বড় উদ্বেগ-উৎকন্ঠা

ভীষণ মর্মপিড়ীত হই তোমার দূর্দ্দিন দুঃসময়ে

আকাশে বাতাসে যখন দেখি শকুনের ওড়াওড়ি

আতঙ্কিত হই যখন জেগে ওঠে আনাচে কানাচে

ঘাপটি মেরে থাকা নরপশু রাজাকার আলবদর

তীক্ষè নখরে খামচিয়ে ধরতে চায় মা-মাটি-মানুষের

স্বাধীনতার জাতীয় পতাকাকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here