প্রতিকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার: ঢাকার সাভারে ওড়নাহীন বাসে উঠায় এক গারো ছাত্রী হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ওই শিক্ষার্থী এ অভিযোগ করেন।

অভিযোগ করে বালমী (ছদ্দনাম) বলেন, গতকাল সাভার থেকে ক্যাম্পাস যাওয়ার জন্য এমএম লাভলি বাসে উঠলে ওড়না না নেওয়ায় বাঁধা দেন বাসে থাকা দুই লোক। প্রতিবাদ করলে এক পর্যায়ে তাদের সাথে প্রচণ্ড বাকবিতণ্ডা হয়। তাঁরা ধর্ষণের জন্য কাপড়কে দায়ী করেন এবং বালমীকে ময়লা আবর্জনা বলে বাস থেকে নামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন।

এই বিষয়ে আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অলিক মৃ বলেন, এমন ঘটনা দুঃখজনক। বাংলাদেশে আদিবাসী নারীদের অধিকার এবং নিরাপত্তা দিতে রাষ্ট্র ব্যর্থ।

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল রনির সাথে যোগাযোগ করলে জনজাতির কণ্ঠকে তিনি জানান, যারা বাসে ওই শিক্ষার্থীর পোশাক নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, তাকে বাস থেকে নামিয়ে দেয়ার কথা বলেছেন আর দেশের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য তাকে দায়ী করেছেন; সেই মানুষগুলো জানে একজন আদিবাসী এই রাষ্ট্রে কতটা অসহায়, ক্ষমতাহীন এবং একজন নারী কতটা পেশী শক্তিহীন৷ এই নিপীড়কদের কাছে মানুষটির দুটি পরিচয়- এক নারী, দুই আদিবাসী। ক্ষমতার প্রশ্নে এই মানুষটি তাদের চেয়ে পিছিয়ে আছে বলেই বিকৃত মানসিকতার মানু্ষগুলো তাদের ক্ষমতার চর্চা করেছেন।

ছাত্র ইউনিয়নের এই নেতা আরও বলেন, ফাঁসিতে ঝুলানো যে ধর্ষণ-নিপীড়ন থামানোর চূড়ান্ত উপায় নয় এবং ধর্ষণসহ সকল নিপীড়ন একধরণের ক্ষমতার চর্চা, তা এই ঘটনা আমাদের চোখে আঙুল দিয়ে আবার দেখিয়ে দিয়েছে। এর বিরুদ্ধে সর্বত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলা দরকার।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here