নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানী গুলশানের একটি পার্লারে সেবা গ্রহিতার হার চুরির মিথ্যা অভিযোগে গারো বিউটিশিয়ানকে হয়রানি করা হয়েছে। বুধবার (২২ জানুয়ারী), বিকাল ৫টার দিকে গুলশান থানা পুলিশ গারো নারীকে কর্মরত অবস্থায় আটক করে।

জানা যায়, গত ২০ জানুয়ারী অভিযোগকারী নারী গুলশানের ওমেন্স ওয়ার্ল্ড নামের একটি বিউটি পার্লারে সেবা নিতে আসে। অভিযোগকারীর ভাষ্যমতে, পার্লারে তাঁর তিন ভরি সোনার হার খোয়া যায়। পরের দিন (২১ জানুয়ারী) ঐ নারী গুলশান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ পার্লারের স্টাফ ইন্দিরা নেংমিঞ্জা ও ব্যবস্থাপক মিলিকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ এবং অভিযুক্তাদের বাড়িতে চিরুনি অভিযান চালালে হার মেলেনি। এদিকে বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠন (বাগাছাস), গারো স্টুডেন্ট ইউনিয়ন (গাসু) এবং অপরাপর গারো নেতৃবৃন্দের ক্রমাগত চাপে পুলিশ রাত ১২টার দিকে অভিযুক্তাদের ছেড়ে দেয়।

হার চুরির অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে জানিয়েছেন অভিযুক্তা ইন্দিরা নেংমিঞ্জা।

ওমেন্স বিউটি ওয়ার্ল্ড গুলশান শাখার ম্যানেজার তানজিনা জনজাতির কন্ঠকে জানান, হার চুরির মিথ্যা অভিযোগে আমাদের দুই সহকর্মীকে হয়রানি করা হয়েছে। তাদের দুজনকে পুলিশ প্রায় ৭ ঘন্টা থানায় আটকে রাখে। এটি প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুন্ন করার ষড়যন্ত্রও হয়ে থাকতে পারে।

সহকর্মী রিনা ক্যাথরিন ম্রং বলেন, আমরা গারো মেয়েরা সততার সাথে পার্লার, বাসা বাড়িতে কাজ করি। প্রায়ই নানান দামি জিনিস চুরির মিথ্যে অভিযোগ এনে আমাদের গারো নারীদের অপমান, অপদস্থ, হয়রানি করা হয়।

গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম কামরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এক কাস্টমারের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ওমেন্স ওয়ার্ল্ডের দুই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হলেও পরে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here