ইউপিডিএফ’র লগো। সংগৃহীত ছবি

রাঙামাটির নান্যাচরে বিচার বহির্ভূতভাবে সেনাবাহিনীর গুলিতে নিহত দুই পাহাড়ি হত্যার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)।

আজ বুধবার (১৪ অক্টোবর) সংগঠনটির রাঙামাটি জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা সংবাদ মাধ্যমে দেয়া এক বিৃবতিতে অভিযোগ করে বলেন, গতকাল বিকালে নান্যাচর উপজেলার বুড়িঘাট এলাকায় ইউপিডিএফের এক সদস্যসহ দুই জনকে পরিকল্পিতভাবে কথিত ‘গোলাগুলির’ নাটক সাজিয়ে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

এতে নিহত দুজন হলেন উপজেলার আঝাছড়ি গ্রামের মনোরঞ্জন চাকমার ছেলে আশাপূর্ণ চাকমা ওরফে রকেট (২৮) ও ধামেইছড়া বন্দুকভাঙার সুসেন মনি চাকমার ছেলে সম্ভূ চাকমা।

বিবৃতিতে তিনি জানান, ‘গতকাল বিকেলের দিকে ইউপিডিএফের দুই সদস্য ইঞ্জিনচালিত নৌকায় করে পুটিখালি নিয়ে যাওয়ার জন্য সম্ভূ চাকমাকে অনুরোধ করেন। ইউপিডিএফ সদস্য আশাপূর্ণ চাকমা নৌকায় উঠলেও অপর সদস্য প্রাকৃতিক ডাকে সাড়া দেয়ার জন্য দেরি করে ফেলেন। এসময় সেনাবাহিনী ও তাদের মদদপুষ্ট দুর্বৃত্তদের অতর্কিত গুলিবর্ষণে তাঁরা ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

এই ঘটনাকে ধামাচাপা দেয়ার জন্য বন্দুকযুদ্ধ ও অস্ত্র উদ্ধারের নাটক সাজানো হয়েছে বলে ইউপিডিএফ নেতা দাবি করেন। বিবৃতিতে তিনি কথিত গোলাগুলি বা বন্দুকযুদ্ধের নামে বিচার বহির্ভূত হত্যা বন্ধ করা ও পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টির দাবি জানান।

অন্যদিকে, এ ঘটনায় শাহাবুদ্দিন (২৮) নামের এক সেনাসদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে জানা গেছে।

নানিয়ারচর থানার উপ-পরিদর্শক আনোয়ার কামাল জানান, নিহত দুই ইউপিডিএফের কর্মীর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে আনা রয়েছে। পরে পরিবারের কাছে সেটি হন্তান্তর করা হবে। যদি কেউ মরদেহ দাবি না করে, তাহলে বেওয়ারিশ হিসেবে দাহ ক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে। একই সাথে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here