সংগৃহীত ছবি

রংপুরের বদরগঞ্জে অষ্টম শ্রেণী পড়ুয়া এক আদিবাসী ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগে লায়লাতুল বরাত (১৯) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার বিকেলে উপজেলার লোহানীপাড়া ইউনিয়নের আদিবাসী পল্লী শিমুলঝুড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থীর মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর আজ বৃহস্পতিবার তাকে রংপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, স্কুলে যাওয়া আসার পথে লায়লাতুল বরাত প্রায় সময় মেয়েটির পথ আটকিয়ে প্রেমের প্রস্তাব দিতো। এতে রাজি না হওয়ায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়েটিকে উত্যক্ত করা শুরু করে। করোনাকালে স্কুল বন্ধ থাকায় প্রভাবশালী পরিবারের বখাটে লায়লাতুল মেয়েটির বাড়িতে এসে বিরক্ত করতো। নিষেধ করা হলেও লায়লাতুল কারো কথা শোনেনি। পরে তার পরিবারকে বিষয়টি জানানো হলেও কাজ হয়নি। গতকাল বুধবার বিকেলের দিকে লায়লাতুল শ্রমিক নিয়ে মেয়েটির বাড়ির পেছনে গাছ কাটতে যায়। এসময় সে মেয়েটির বাড়ির ভেতরে ঢুকে পানি চান। টিউবয়েল থেকে পানি নিয়ে তাকে দিতে গেলে সে মেয়েটির গায়ে পানি ছিটিয়ে দেয়। বাড়িতে মা-বাবা না থাকার সুযোগ নিয়ে এক পর্যায়ে সে কু-প্রস্তাব দিয়ে মেয়েটিকে জাপটে ধরে। তার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালায়। পরে মেয়ের চিৎকার শুনে পরিবারের লোকজন এসে লায়লাতুলকে আটক করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রাতে বখাটে বরাতকে আটক করে থানায় নেয়।

এদিকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে লায়লাতুলকে ফাসানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন স্বজনেরা।

বদরগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান হাওলাদার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘অভিযুক্ত ছেলেটিকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।’

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here