মেডিকেল

জনজাতির কন্ঠ ডেস্ক: মেডিকেল কলেজে সমতলের আদিবাসী কোটায় ভর্তি তালিকায় অনিয়মের অভিযোগ তুলেছে আদিবাসী নেতারা। শনিবার (১৭ এপ্রিল), দুপুরে মৌলভীবাজার কমলগঞ্জের প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ তোলা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মণিপুরী সমাজকল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক কমলাবাবু সিংহ। এসময় তিনি বলেন, বাংলাদেশে সমতলে বসবাসরত আদিবাসী শিক্ষার্থীদের জন্য সরকারি মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তির জন্য আটটি সিট বরাদ্দ রাখা হয়েছে। ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে সরকারি মেডিকেল কলেজে ৭৭ নম্বর কোডে সমতলের আদিবাসী কোটায় ভর্তির জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তর যে তালিকা প্রকাশ করে তার অধিকাংশই অ-আদিবাসী শিক্ষার্থী। ফলে আদিবাসী শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকরা এখন হতাশাগ্রস্ত।

কমলবাবু সিংহ আরও বলেন, সরকারের একটি মহৎ উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভুলের কারণে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। গত তিন বছর যাবৎ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এ ধরনের ভুলের কারণে অনেক আদিবাসী শিক্ষার্থী মেডিকেল কলেজে ভর্তি হতে বঞ্চিত হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে আদিবাসী নেতারা সরকারি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করে সমতলের উপযুক্ত আদিবাসী শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিশ্চিত, আদিবাসী কোটার ভর্তি তালিকায় অ-আদিবাসী শিক্ষার্থীর নাম অন্তর্ভূক্ত না করা, ন্যূনতম ঢাকা মেডিকেল কলেজে একটি, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে তিনটি, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে দুটি সিট বরাদ্দ, কোটায় ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের মাইগ্রেশনের সুযোগ দেওয়া এবং অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে ভর্তির সুযোগপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের নাম-ঠিকানা প্রকাশ করার দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে মণিপুরী সমাজকল্যাণ সমিতির সভাপতি আনন্দমোহন সিংহ, বাংলাদেশ মণিপুরী মুসলিম ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (বামডো) সভাপতি নুর উদ্দিন, জাগরণ যুব ফোরামের সভাপতি মোহন রবিদাস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here