মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গণহত্যা বন্ধের দাবিতে ঢাকায় মানববন্ধন হয়েছে। রবিবার (১১ অক্টোবর), সকালে জাতীয় জাদুঘরের সামনে ‘রাখাইন কমিউনিটি অব বাংলাদেশের’ ব্যানারে এ মানববন্ধন হয়।

এতে রাখাইন সম্প্রদায়ের কয়েক’শ সদস্য অংশ নেয়। এ সময় তাঁরা নিজস্ব ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরিধান করে রাখাইন, ইংরেজি ও বাংলা ভাষায় লেখা প্ল্যাকার্ড, ব্যানার তুলে ধরেন এবং গণহত্যার বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে স্লোগান দেন।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে সংগঠনটির আহ্বায়ক ক্যাঞ্চিং অভিযোগ করে বলেন, রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর তাণ্ডবে তিন শরও বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরো ছয় শরও বেশি। বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। আড়াই লাখ মানুষ এখন সেখানে উদ্বাস্তু জীবনযাপন করছে।

তিনি আরও বলেন, ‘মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী সুকৌশলে ও পরিকল্পিতভাবে বিভিন্ন গ্রামে ঢুকে নির্যাতন, ধর্ষণ, লুণ্ঠন গুলিবর্ষণসহ বসতবাড়িতে অগ্নিসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও কোনো আইনের তোয়াক্কা না করে মানবতাবিরোধী অপরাধযজ্ঞ ধারাবাহিকভাবে চালিয়ে যাচ্ছে।’

মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি মফিদুল হক। অন্যান্যের মধ্যে রাখাইন কমিউনিটি অব বাংলাদেশের সভাপতি মাং শাইরি, মুখপাত্র থং ইউ, রাখাইন স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আবু প্রমুখ বক্তব্য দেন। বক্তারা তাদের বক্তব্যে অনতিবিলম্বে রাখাইন রাজ্যে গণহত্যা বন্ধের দাবি জানান।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here