সরকারি ঘর পাচ্ছেন বাসন্তী রেমা

জনজাতির কন্ঠ ডেস্ক: টাঙ্গাইল বন বিভাগ কলা বাগান কেটে ফেলায় সহায় সম্বলহীন নিঃস্ব হয়ে পড়া মধুপুরের সেই বাসন্তী রেমা এবার সরকারের কাছ থেকে পাকা ঘর পাচ্ছেন। মঙ্গলবার (৩০ মার্চ), উপজেলার শালবেষ্টিত পেগামারী গ্রামে সেই ঘরের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়।

এসময় ঘরের ভিত্তি প্রস্থর কাজের উদ্বোধন করেন মধুপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফা জহুরা। এসময় অন্যান্যের মধ্যে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এম এ করিম, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) রাজিব আল রানা, ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঘর প্রাপ্তিতে অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে বাসন্তী রেমা বলেন, এতোদিন মাটির ঘরে ছিলাম। পাকা ঘরে বসবাস করার কথা স্বপ্নেও ভাবিনি।

প্রধানমন্ত্রীর উপহার এ ঘর প্রাপ্তির সুযোগ করে দেয়ার জন্য ইউএনও ও সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানান বাসন্তী রেমা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফা জহুরা জানান, গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে বাসন্তী রেমার কলাবাগান কেটে ফেলায় তার বড় ধরণের ক্ষতি হয়। সেই ক্ষতি পুষিয়ে দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সাথে যোগাযোগ করে এ ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের সেপ্টেম্বরে মধুপুর বনভূমি জবর দখল উচ্ছেদের অংশ হিসেবে পেগামারী গ্রামের গারো নারী বাসন্তী রেমার ৪০ শতাংশ জমির কলাবাগান কেটে ফেলে বন বিভাগ। এ ঘটনায় আদিবাসীরা ক্ষুব্ধ হয়ে বন বিভাগের রেঞ্জ অফিস ঘেরাও সহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছিল।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here