করম পর্ব পালন। ছবি : সংগৃহীত।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করম উৎসব পালনে সরকারি ছুটির ঘোষণা দিয়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকার। গত ১৮ আগস্ট অর্থ দপ্তরের তরফে করম উৎসবকে ঘিরে আগামী ২৯ আগস্ট ছুটির ঘোষণা সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে পরিষ্কারভাবে ছুটির কথা বলা হয়েছে। নির্দেশিকা অনুযায়ী নবান্ন, মহাকরণের পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসন, বিধিবদ্ধ সংস্থা, পুরসভা, অধীনস্থ সংস্থায় আদিবাসী কর্মীরা এই ছুটি নিতে পারবেন। এছাড়াও রাজ্যের নিয়ন্ত্রণে থাকা সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আদিবাসী পড়ুয়াদের ক্ষেত্রেও এই নির্দেশ কার্যকর হবে।

রাজ্যের বিভিন্ন চা-বাগানে কর্মরত আদিবাসী সম্প্রদায়ের জন্যও এই দিনটি ছুটি বলে ঘোষণা করা হয়েছে। সরকারের এই সিদ্ধান্তে স্বাভাবিক কারণেই খুশি এই সম্প্রদায়ের কর্মীরা।

করম পর্ব ভূমিজ, কুর্মী, বীরহড়, বীরনিয়া, খেরওয়ার, হো, খেড়িয়া, শবর, কোড়া, লোহার, মাহালি, রাজপুত, সিংসরদার, সিংমুড়া, পাহাড়িয়া, মাহাতো, বাউরী, হাড়ি, বাগদি, বেদে, সরাক, ঘাসি, মাহালি ও বৃহৎ জনগোষ্ঠী সাঁওতাল, মুন্ডা, ওঁরাও প্রভৃতি সম্প্রদায়ের আরণ্যক ও কৃষিভিত্তিক লোকউৎসব। এটি ভাদ্র মাসের শুক্ল একাদশ তিথিতে পালিত হয়ে থাকে।

তবে বাংলাদেশের এইসব সম্প্রদায়ের আদিবাসীরা করম পর্ব উৎসব পালনে কোন সরকারি ছুটি পায় না। বাংলাদেশে কবে সহরায়, বাহা, কারাম পালনে ছুটি দিবে ও রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন করা হবে এমন প্রশ্ন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা সুভাষ চন্দ্র হেমব্রমের। তিনি আদিবাসীদের এইসব লোকউৎসব পালনে রাষ্ট্রকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here