ফিটনেস ধরে রাখতে মারিয়া-শিউলী-সাজেদার অনুশীলন। ছবি : নিজস্ব

স্পোর্টস রিপোর্টার: প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের ফলে তিন মাস ধরে সব ধরণের খেলা বন্ধ হয়ে আছে। নেই কোনো জাতীয় বয়সভিত্তিক দলের কার্যক্রমও। বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলের খেলোয়াড়েরা যে যাঁর বাড়িতে আছেন কিন্তু তবু অবসর নেই। এই করোনাকালেও ফিটনেস ধরে রাখতে নিয়মিত চালিয়ে যেতে হচ্ছে অনুশীলন, করতে হচ্ছে ফিটনেস লেভেল ধরে রাখার সর্বোচ্চ চেষ্টা।

ফিটনেস ধরে রাখতে মেয়েদের উঠান প্রাক্টিসের পরামর্শ দিয়েছেন কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন। তিনি নিয়মিত মেয়েদের খোঁজ রাখছেন, কখনো মুঠোফোনে আবার কখনো ভার্চুয়াল মাধ্যমে।

জাতীয় দলের খেলোয়াড় হয়েও ভালো মাঠের অভাবে অনুশীলনে বেগ পেতে হচ্ছে মারিয়া মান্দা-শিউলী আজিমদের। এই দুজন জাতীয় নারী ফুটবল দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। মারিয়া মান্দা অনুর্ধ্ব-১৬ ফুটবল দলের অধিনায়ক।

আজ পড়ন্ত বিকেলে জাতীয় নারী ফুটবল দলের অন্যতম ডিফেন্ডার শিউলী আজিমের সাথে মুঠোফোনে কথা হয়। কথা শুনে বোঝা গেল মাত্রই খেলা শেষে বিশ্রাম নিচ্ছেন। জিজ্ঞেস করতেই ক্লান্ত কন্ঠে মাঠের বেহাল দশার কথা জানালেন, ‘মাঠ ভালো না, মারিয়াদের (মারিয়া মান্দা) বাড়ির পেছনে নদী পাঁড়ের খোলা কাদাভর্তি মাঠে অনুশীলন করছি।’

আগামী সেপ্টেম্বরে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ও অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবল প্রতিযোগিতা হওয়ার কথা রয়েছে। প্রতিযোগিতা দুটি টার্গেট করে মেয়েদের তৈরি থাকার তাগিদ দিয়েছেন কোচ ছোটন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here