করোনা মহামারীর ফলে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক ভিত দুর্বল হয়ে পড়েছে। লকডাউনে অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর লোকেদের কাছে পর্যাপ্ত ত্রাণ পৌঁছে দেয়া হয়নি। গতকাল মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন আয়োজিত এক ওয়েবিনারে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর নেতৃবৃন্দ এ অভিযাগ করেন। নেতৃবৃন্দ একইসঙ্গে এই জনগোষ্ঠীর জন্যে সহজ শর্তে ঋণের ব্যবস্থা করে দেওয়ার দাবি জানান।

খাসিয়া সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি বাবলি তালাং বলেন, পান চাষ যেহেতু বাজারজাতের মূল্য স্থিতিশীল নয়। ফলে অর্থনীতি হুমকির মুখে। এলাকাগুলোতে স্বাস্থ্যসেবা নাজুক অবস্থা, এসময়ে স্বাস্থ্যসেবার ব্যবস্থা করা খুব জরুরি। সরকারি যে সহায়তা উপজেলা পরিষদ প্রশাসনের সামান্য বরাদ্দ পেয়েছি। আদিবাসীদের জন্য কিছু দেওয়া হয়েছে কিনা আমাদের জানা নেই। আদিবাসী এই নারী নেত্রী আরও বলেন, পান চাষ অর্থনীতি উন্নয়নে ভূমিকা রাখে। সেহেতু চাষিদের জন্য বিশেষ অনুদান ও সহজ শর্তে ঋণ প্রয়োজন।

সুস্থজীবন সংগঠনের প্রকল্প সমন্বয়ক পার্বতী হিজড়া বলেন, আমরা এখন জীবন জীবিকার ব্যবস্থা করতে পারি না। সরকারের দেওয়া ২৫শ টাকাও আমাদের সবার কাছে পৌঁছায়নি।

দলিত জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধি হরিজন কলোনির নির্মল কান্তি দাস বলেন, আমরা দলিত জনগোষ্ঠীর মধ্যে এমন একটি জনগোষ্ঠী যারা পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে কাজ করি। আমরা ভীষণ খারাপে আছি। কর্তৃপক্ষ মাস্ক-গ্লাভস সরবরাহ করেনি। চিকিৎসকদের আপনারা নানা প্রণোদনা দিচ্ছেন, আমরাও তো রোগীর আবর্জনা পরিষ্কার করছি, আমাদের জন্য সরকারের কী ব্যবস্থা?

চট্টগ্রাম সিআরপি থেকে শারীরিকভাবে চ্যালেঞ্জড প্রতিবন্ধী উন্নয়ন পরিষদের নিলুফার ইয়াসমিন বলেন, আমরা বরাবরই বৈষম্যের শিকার। সাহায্য নিতে লাইনে দাঁড়ালে শুনতে হয় আপনারা ভাতা পান, ত্রাণ দিয়ে কী হবে। ভাতার পরিমাণ মাত্র সাড়ে ৭শ টাকা, তাও পেতে হয় অনেক হিমশিম খেয়ে।

শরিয়তপুর জেলে সম্প্রদায়ের সুরুজ মিয়া বলেন, সারা বছর মাছ ধরি। নভেম্বর থেকে মে মাছধরা বন্ধ থাকে। সেসময় চার মন চাল পাই। কিন্তু সবসময় পুরোটা পাই না। করোনাকালে আমরা বাড়তি কিছু পেলাম না।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, এই নিগৃহীত গোষ্ঠীকে প্রাথমিক স্বীকৃতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সরকারে সাহায্যের ২৫শ টাকার কেউ কেউ পেয়েছেন। মন্ত্রী প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর প্রত্যেক প্রতিনিধির দাবিগুলো এক এক করে জবাব দেন। পান চাষিরা কৃষি ব্যাংকের ঋণ কেন পাবেন না সে বিষয়ে যোগাযোগের আশ্বাসও দেন তিনি।

মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের প্রধান শাহীন আনামের সঞ্চালনায় সভায় অধিকারকর্মী, অর্থনীতিবিদ, নারীনেত্রী, গবেষকসহ প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর নেতৃবৃন্দ অংশ নেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here