রাজশাহীর পুঠিয়ায় আদিবাসী গৃহবধূ মেরিনা মার্ডি (৩৫) হত্যাকাণ্ডে মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহতের মা সুরোজ মার্ডি অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে থানায় মামলা করেন।

নিহত মেরিনা মার্ডি উপজেলার আটভাগ আদিবাসী গ্রামের নরেন মার্ডির স্ত্রী। তিনি তিন সন্তানের জননী।

ঘটনার পর থেকে এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে মাঠে সার্বক্ষণিক পুলিশ কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন পুঠিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) খালেদুর রহমান।

পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল ইসলাম বলেন, বুধবার সকালে নিহতের লাশ ময়নাতদন্ত শেষে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার জন্য তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতেই নিহত ওই গৃহবধূর মা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। তবে মামলায় কারো নাম উল্লেখ করেননি। পুলিশ এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন ও ঘটনার সাথে জড়িতদের শনাক্ত করতে কাজ করছে।

উল্লেখ্য, নিহত মরিলা মাড্ডি গত ১৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যার দিকে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হন। পরের দিন বাড়ির অদূরে কলাবাগান থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতের পরিবার ও স্থানীয় লোকজন ধারণা করছেন দুর্বৃত্তরা তাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here