পাহাড়ি নারীরা এখনো বৈষম্যযুক্ত সমাজে বসবাস করে। তাদের অবস্থান পুরুষের সমান নয়। দেশে বৈষম্য নিপীড়ন থাকায় নারীরা এখনো তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত বলে মন্তব্য করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা (সন্তু লারমা)।

বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারী), বিকেলে নারীদের নিয়ে ‘ট্রেনিং অন ইয়ুথ লাইফ স্কিল’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

পার্বত্য চট্টগ্রামের নারীদের অধিকার নিশ্চিত করতে পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ, তিন পার্বত্য জেলা পরিষদে নারীদের আসন সংরক্ষণ করা হয়েছে। এ সংরক্ষিত আসনগুলো ছাড়াও নারীরা চাইলে অন্যান্য আসনগুলোতে নির্বাচনের মাধ্যমে বিজয়ী হয়ে চেয়ারম্যান বা সদস্য হতে পারবেন। সে পথ খোলা রাখা হয়েছে। পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন না হওয়ার কারণে এসব পরিষদগুলোতে নির্বাচন হচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন লারমা।

সন্তু লারমা আরও বলেন, শোষণ নিপীড়ন থেকে মুক্তি পেতে নারীরা বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার মাধ্যমে পথ খুঁজে পাওয়ার চেষ্টা করছে। তারা প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। এ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তারা নিজেদের অধিকার সম্পর্কে জানার চেষ্টা করছে। সচেতন হচ্ছে। এ নিয়ে আরো কাজ করা দরকার।

গ্লোবাল অ্যাফেয়ার কানাডার অর্থায়নে ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় এ কর্মশালার আয়োজন করে রাঙামাটির এনজিও প্রোগ্রেসিভ। এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন প্রোগ্রেসিভ এর নির্বাহী পরিচালক সুচরিতা চাকমা, উইভ এর নির্বাহী পরিচালক নাইপ্রু মারমা মেরী, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের প্রতিনিধি ইশরাত জাহান ও ট্রেনার ফয়সাল প্রমুখ।

তিন দিনের কর্মশালায় জেন্ডার সমতা, ক্ষমতায়ন, নেতৃত্ব ও প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এতে পাহাড় ও সমতলের ২৮ জন তরুণী অংশ নেয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here