স্টাফ রিপোর্টার: পর্যটন শিল্প বিকাশের নামে দেশে আদিবাসী উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র চলছে। শাসকগোষ্ঠী বাঙালি ভিন্ন জাতিগোষ্ঠীকে দেশ থেকে তাড়ানোর জন্য কৌশলে পর্যটনের নামে তাদের ভূমি বেদখল করছে। ফলে আদিবাসীরা নিজভূমে হচ্ছে পরবাসী।

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারী), বিকালে চট্টগ্রামের চেরাগী পাহাড় মোড়ে অনুষ্ঠিত আদিবাসীদের এক বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন।

বান্দরবানের চিম্বুক পাহাড়ে ম্রোদের ভূমি বেদখল করে সিকদার গ্রুপ ও সেনা কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে পাঁচ তারকা হোটেল ও পর্যটন নির্মাণ কার্যক্রম বন্ধ সহ ৫ দফা দাবিতে গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ, হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘ নামের ৪টি সংগঠন এ সমাবেশের আয়োজন করে।

গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের নেতা শুভ চাকের সভাপতিত্বে সমাবেশে পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘের সভাপতি রেশমী চাকমা, ছাত্র ইউনিয়ন চবি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক প্রত্যয় নাফাক, ছাত্রফ্রন্ট মহানগরের নেত্রী দিপা মজুমদার, গণতান্ত্রিক ছাত্র কাউন্সিলের নেত্রী এ্যানি চৌধুরী, পিসিপি চবি শাখার দপ্তর সম্পাদক সোহেল চাকমা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এরআগে বিকাল সাড়ে ৩টায় নগরীর ডিসি হিল হতে মিছিল বের করে বিক্ষোভকারীরা। মিছিলটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক পদক্ষিণ শেষে প্রেসক্লাব ঘুরে চেরাগী পাহাড় মোড়ে প্রতিবাদী সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশ থেকে বক্তারা অবিলম্বে ম্রোদের দাবি মেনে নিতে সরকারকে আহ্বান জানান।

এছাড়াও চিম্বুকের নাইতং পাহাড়ে ম্রো জনগোষ্ঠীর ভূমিতে হোটেল নির্মাণ বন্ধে জাতিসংঘ, অ্যামনেষ্টি ইন্টারন্যাশনাল, এআইপিপি সহ জাতীয় আন্তর্জাতিক অনেক সংস্থা, সংগঠন সরকারকে আহ্বান জানিয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here