অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস। ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলতি সমাজ ব্যবস্থায় ‘ডিজিটাল ডিভাইড’ আছে। নতুন কোন ডিভাইস তৈরী হলে যারা বিত্তবান তাঁরা আগে পায় আর দশ বছর পর প্রান্তিক মানুষের কাছে যখন সেটি পৌঁছায় তখন আর তা নতুন থাকে না। তখন আরও নতুন প্রযুক্তি ফোর জি, ফাইভ জি চলে আসে, প্রান্তিক মানুষ জি-১ পড়ে থাকে। কাজেই দেখা যায়, ধাবমান উন্নতির সঙ্গে প্রান্তিক মানুষ সমানতালে এগোতে পারে না। ফলে পিছিয়ে পড়ার মাঝে প্রান্তিক মানুষ আরো পিছিয়ে পড়ে।

শনিবার (১৮ জুলাই), সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় অনুষ্ঠিত ‘করোনা সংকটে আদিবাসী জীবন ও মূলস্রোতের মানুষের ভাবনা’ শীর্ষক এক ওয়েবিনারে অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস এসব কথা বলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই অধ্যাপক আরও বলেন, ‘আমরা অস্বাভাবিক সময় পার করছি, ফিরে যেতে চাইছি স্বাভাবিক সময়ে। কিন্তু কোন স্বাভাবিক সময়ে ফিরতে চাচ্ছি? যেখানে সুন্দরবনকে ধ্বংস করা হয় বিদুৎ কেন্দ্র বানানোর জন্যে? আমাজনের জঙ্গল পুড়িয়ে গাছপালা-প্রাণী হত্যা করা হয় নির্বিশেষে? করা হয় নারী-পুরুষ, কালো-সাদার বৈষম্য? যেখানে থাকে আদিবাসী বাঙালির বিরাট বৈষম্য? সেই নরমাল সময়ে আমরা ফিরে যেতে চাইছি?’

পৃথিবীর সকল প্রাণীর নিজের মতো করে বাঁচার অধিকার আছে উল্লেখ করে অধ্যাপক ফেরদৌস আরও বলেন, ‘প্রকৃতি ও জীবন সম্পর্কে আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টাতে হবে। আদিবাসী মানুষ প্রকৃতির সকল কিছুর মধ্যে প্রাণের অস্তিত্ব খুঁজে পায়। এজন্যে তাঁরা প্রকৃতিকে ভালোবাসে। আদিবাসী মানুষ খায় কিন্তু নির্বিচারে ফ্রিজআপ করে অপচয় করে না।’ বৃহত্তর সমাজে প্রাণ প্রকৃতি প্রাণীকে পদানত করে রাখার যে দানবীয় মনোভাব সেটি বদলানো দরকার বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই অধ্যাপক।

জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক রেজোয়ানা করিম স্নিগ্ধা বলেন, ‘রাষ্ট্র আদিবাসী মানুষকে সকল সুবিধা দিতে পাচ্ছে না, যার ফলে সাংবিধানিক স্বীকৃতি প্রদানে দেখা যায় অনীহা। যেখানে বাংলাদেশে আদিবাসীদের সাংবিধানিক স্বীকৃতিই নেই সেখানে রাষ্ট্র কী করে এই করোনাকালীন সময়ে আদিবাসীদের দিকে বিশেষ নজর দিবে?’

বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক বিনতাময় ধামাই মনে করেন, ‘আদিবাসীদের আত্মনিয়ন্ত্রনের অধিকার আছে। আত্মনিয়ন্ত্রন অর্থ বিচ্ছিন্নতা নয়। আত্মনিয়ন্ত্র হল একটি স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্রে কে কীভাবে থাকতে চায়, কী হবে তাঁর রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক, সামাজিক পরিচয় সেটি নির্ণয় করার অধিকার।’

ফেরদৌস আহম্মেদ উজ্জ্বল সঞ্চালিত অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বেসরকারি সংস্থা মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের প্রোগ্রাম ম্যানেজার জাহেদ হাসান, আইইডি’র নির্বাহী পরিচালক নুমান আহম্মেদ খান প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here