সংগৃহীত ছবি

চা পাতার মারাত্মক দরপতনের কারণে হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার ৫টি চা বাগান পড়েছে হুমকির মুখে। বাগান কর্তৃপক্ষকে উৎপাদন খরচের চেয়ে কম দামে দেশীয় চা পাতা বিক্রি করতে হচ্ছে। এতে চা শিল্পের ভবিষ্যৎ নিয়ে দেখা দিয়েছে শঙ্কা।

চা পাতার দরপতনের কারণে বাগানের মালিক, ব্যবস্থাপক ও শ্রমিকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে হতাশা। বাগান কর্তৃপক্ষের মতে, এ অবস্থা চলতে থাকলে চা শিল্প বেশিদিন টিকিয়ে রাখা যাবে না। কারণ চা বাগান গুলো ব্যাংক ঋণ ও বাগানের নিজস্ব অর্থায়নে পরিচালিত হচ্ছে। চায়ের দরপতনের কারণে লোকসানের মধ্যে পরে বাগানগুলো ভবিষ্যতে বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে প্রতিনিয়ত সীমান্তে চোরাই পথে চা পাতা আসে। সীমান্ত রক্ষীরা বিভিন্ন সময়ে অভিযান চালিয়ে অনেক চা পাতা জব্দ করেছে। চা বাগান সংশ্লিষ্টদের অভিযোগ, সরকার  চা শিল্পের প্রতি তেমন নজর দেয় না। এ কারণে চা বাগানগুলো বড় আর্থিক সংকটে বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

জানা যায়, মাধবপুরের তেলিয়াপাড়া ,সুরমা, জগদীশপুর, বৈকন্ঠপুর ও নয়াপাড়া চা বাগান বন্ধ হয়ে গেলে প্রায় ৩০ হাজার শ্রমিক কর্মহীন হয়ে পড়বে। এছাড়া মালিকদের বিনিয়োগ করা মোটা অংকের টাকা ও ব্যাংক ঋণ অনাদায়ী হয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here