ডাইনী অপবাদ
প্রতীকি ছবি

জনজাতির কন্ঠ ডেস্ক: ডাইনী অপবাদে বিগত ৮ মাস ধরে ঘরছাড়া হয়ে জঙ্গলে, গাছের তলায় বসবাস করছে এক আদিবাসী পরিবার। ১২ সদস্যের ওই পরিবার এবার অভিযোগ নিয়ে প্রশাসনের দ্বারস্থ হলেন। এ ঘটনা ভারতের বীরভূমের আদিবাসী অধ্যুষিত বোলপুরের।

ওই আদিবাসী পরিবারের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম দ্য ওয়াল জানায়, ২০২০ সালের ২১ জুলাই রাজ্যের মণিকুণ্ডুডাঙা গ্রামে একটি সালিশ বসে। এ গ্রামে আদিবাসী জনসংখ্যা বেশি। সেই সভাতেই ওই আদিবাসী পরিবারকে ডাইনী অপবাদ দেয়া হয়। তারপরই তাদের গ্রাম ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য করা হয়। গ্রাম না ছাড়লে তাদের মেরে ফেলা হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। ওইদিনই তারা গ্রাম ছাড়তে বাধ্য হন।

গ্রামে ফেরার জন্য ওই আদিবাসী পরিবার সিয়ান মুলুক গ্রাম পঞ্চায়েত ও বোলপুর শ্রীনিকেতন ব্লকে লিখিত আবেদন এবং পশ্চিমবঙ্গ আদিবাসী গাঁওতার পক্ষ থেকে স্মারকলিপি দিয়েছে। এরমধ্যে পেরিয়ে গেছে ৮ মাস। কিন্তু কোন সুরাহা হয়নি।

দুর্দশার কথা বলতে গিয়ে ওই পরিবারের মধ্যবয়সী বধূ বলেন, যে পাড়াতেই যাচ্ছি আমাদের তাড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। বলছে আমরা খারাপ। ঠিকানা না থাকলে কাজ করবো কি করে? আমরা গরীব বলেই কি থানা-পুলিশ আমাদের গ্রাহ্য করে না?

পশ্চিমবঙ্গ আদিবাসী গাঁওতার বোলপুর-শান্তিনিকেতন শাখার শিবু সরেন বলেন, ঘটনা জানার পর থেকেই আমরা পরিবারটির সঙ্গে ছিলাম। প্রশাসনিক সব রকম কাজ করেছি। কিন্তু দুঃখের বিষয় পরিবারটিকে এখনো ঘরে ফেরাতে পারিনি।

বীরভূমে এর আগেও এমন ঘটনা ঘটেছে। কুসংস্কার এবং অশিক্ষার জন্য এমনটি ঘটছে বলে মনে করেন পশ্চিমবঙ্গ বিজ্ঞান মঞ্চের বিজ্ঞানকর্মী শুভাশিস গড়াই।

এ ব্যাপারে বোলপুরের মহকুমাশাসক মানস হালদার বলেন, বিষয়টি এসডিপিও (বোলপুর), বিডিও (বোলপুর-শ্রীনিকেতন ব্লক), আইসি (বোলপুর থানা)-কে জানানো হয়েছে। গ্রামবাসীর সঙ্গে আলোচনা করে যতো দ্রুত সম্ভব পরিবারটিকে গ্রামে ফেরানোর উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here