ফজলে হোসেন বাদশা এমপি। ফাইল ছবি

মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বিবেচনা করে আদিবাসী, সংখ্যালঘুসহ সমাজের সব সুবিধা বঞ্চিতদের অন্তর্ভুক্ত করে রাষ্ট্রের কাছে তাদের যে অর্থনৈতিক অধিকার আছে, তা বাস্তবায়ন করতে হবে। সে অনুযায়ী জাতীয় বাজেট প্রণয়ন করতে হবে। বুধবার (১০ জুন) গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলনের উদ্যোগে আয়োজিত ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ‘জন-বাজেট সংসদ’ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ফজলে হোসেন বাদশা এমপি।

ওয়াকার্স পার্টির এই নেতা আরও বলেন, এবারের বাজেটে স্বাস্থ্য ও সেবা খাতকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। কারণ এটা হতে হবে ‘জীবন বাঁচানোর বাজেট।

সম্মেলনে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শারমিন্দ নিলোর্মী, গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার মোস্তফা, অ্যাকশনএইডের পরিচালক আসগার আলি সাবরি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান বলেন, এবারের বাজেট হতে হবে বেঁচে থাকার। টিকে থাকার বাজেট হতে হবে। বাজেটে জনগণ দেখতে চায়, কোন কোন খাত অগ্রাধিকার পাবে, কোন খাতে কীভাবে ব্যয় করা হবে। স্বাস্থ্যখাতে বাজেট বরাদ্দ গত বছরের থেকে ৩ শতাংশ বেশি বা দ্বিগুণ করতে হবে এবং বাজেটের বড় একটা অংশ বিনিয়োগ করতে হবে যন্ত্রপাতি এবং ডাক্তার, নার্স ও টেকনিশিয়ান নিয়োগ করার ক্ষেত্রে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. শরমিন্দ নিলোর্মি বলেন, বাজেট বরাদ্দে পরিষ্কারভাবে দিকনির্দেশনা থাকতে হবে এবং প্রয়োজন হলে আগামী ছয় মাসের জন্য একটা মধ্যবর্তী কর্মপরিকল্পনা তৈরি করতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here